এমদাদুল হক,কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি :-

২০১৫ সালে মোছাঃ জেসমিন খাতুনের বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়ায় মোঃ রবিন হোসেন ও ভিকটিমের পরিবারের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকার কারনে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। মোঃ রবিন হোসেন ভিকটিমকে বিবাহ করার প্রেলোভন দেখিয়ে তার সাথে দৈহিক মেলামেশা করার কারনে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ভিকটিম অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ার পরেও তাকে বিবাহ করার আশ্বাস দেখিয়ে মোঃ রবিন হোসেন পালিয়ে ময়মনসিংহ চলে যায়।
গত ০৩ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে ভিকটিম কন্যা সন্তান প্রসব করেন।
উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে ভিকটিম বাদী হয়ে গত ০২ নভেম্বর ২০২৩ তারিখ কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) এর ৯(১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন, যার মামলা নাম্বার-৮, তারিখ-০২ নভেম্বর ২০২৩। উক্ত ঘটনাটিতে মিডিয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।
যার ধারাবাহিকতায় সিপিসি-১ কুষ্টিয়া, র‌্যাব-১২ দিবাগত রাতে ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ী থানা এলাকা হতে উক্ত ধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় প্রধান আসামি মোঃ রবিন হোসেন (৩৭), পিতা-মোঃ গোপাল মোল্লা, সাং-চিথলিয়া, থানা-মিরপুর, জেলা-কুষ্টিয়া’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।