নড়াইল জেলা প্রতিনিধি।

নড়াইলের লোহাগড়ায় মা ও মেয়েকে পিটিয়ে বসতবাড়ি দখলের চেষ্টা চালিয়েছে একদল দুর্বৃত্ত। আহত মা-মেয়েকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) শহরের মশাগুনি এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব বিরোধের জেরে বুধবার সকালে একই এলাকার নাজিম উদ্দীন দেওয়ানের নেতৃত্বে তার ছেলে আলিফসহ ৪-৫ জন শাবল ও লাঠিসোটা নিয়ে ব্যবসায়ী শেখ নিজাম উদ্দীনের বসতবাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় নিজাম উদ্দীনের মেয়ে ময়না বেগমকে (২৮) পিটিয়ে আহত করে। এলাকাবাসী আহত ময়না বেগমকে উদ্ধার করে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনার প্রায় ৩ ঘণ্টা পর দুপুর ২টার দিকে আবারও তারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে নিজামের বসতবাড়ি দখলের চেষ্টা চালায়। এ সময় ব্যবসায়ী নিজাম উদ্দীনের স্ত্রী লাবনী বেগম (৫০) তাদের রুখতে গেলে তিনিও হামলার শিকার হন। এ সময় এলাকাবাসী আহত লাবনী বেগমকে উদ্ধার করে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আহত অবস্থায় মা ও মেয়ে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

খবর পেয়ে লোহাগড়া থানার এসআই তৌফিক হাসানের নেতৃত্বে দ্রুত একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী শেখ নিজাম উদ্দিন বলেন, আমি অভিযুক্ত নাজিম উদ্দীন দেওয়ানের ছোট ভাই বিপ্লব দেওয়ানের কাছে রেজিস্ট্রি দলিলসহ বসতবাড়ি কিনে পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছি। কিন্তু নাজিম আমার কেনা বসতবাড়িটি তার দাবি কবে বধবার দদফায় প্রথমে আমার মেয়ে ময়না ও পরে আমার স্ত্রী লাবনীর ওপর হামলা চালিয়ে দখলের জন্য চেষ্টা চালায়। আমি দোষীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত নাজিম উদ্দীনের সঙ্গে কথা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলেও জানান।

এ বিষয়ে লোহাগড়া থানার ওসি কাঞ্চন রায় বলেন, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।