নড়াইল জেলা প্রতিনিধি।

নড়াইলের কালিয়ায় গ্রাম্য দ্বন্দ্বের জেরে এক ছাত্রসহ তিন যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে প্রতিপক্ষ গ্রুপের লোকজন। উপজেলার বাবরা-হাচলা ইউনিয়নের কাঞ্চনপুর গ্রামে বুধবার রাত ৯টার দিকে কেরামবোর্ড খেলার সময় ওই তিন যুবকের উপর অতর্কিত হামলা চালানো হলে তারা গুরুতর আহত হন। আহতদের মূমুর্ষ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহতরা হলেন-কাঞ্চনপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তামিম শেখ (২১),একই গ্রামের কামরুল শেখের ছেলে মুরাদ শেখ (২৫) ও জামির হোসেন (৩২)।

আহতদের স্বজন সূত্রে জানা গেছে, তামিম, মুরাদ ও জামির হোসেন বুধবার রাতে কাঞ্চনপুর গ্রামের একটি ঘরে কেরামবোর্ড খেলছিলেন। এ সময় গ্রামের প্রতিপক্ষ গ্রপের ১০-১৫জন লোক ধারালো অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ওই তিন যুবককে হত্যার চেষ্টা চালায়। প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের কোপে তামিমের বাম পায়ের রগ কেটে যায় এবং চোখসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কোপ লেগে গুরুতর আহত হন তিনি। এছাড়া মুরাদের ডান হাতের রগ কেটে এবং জামিরের মাথায় আঘাত করে গুরুতর জখম করা হয় তাদের। আহতের উদ্ধার করে প্রথমে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানে অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়।

এ বিষয়ে কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শামীম উদ্দিন বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের হযেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে।বাকী আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ জোর চেষ্টা চালাচ্ছে।